জাবিতে শিক্ষার পরিবেশ স্বাভাবিক রাখার অনুরোধ জানিয়ে আন্দোলনকারীদের মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের চিঠি ।

0
104

জাবি প্রতিনিধি : জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) চলমান উপাচার্য বিরোধী আন্দোলনে শিক্ষার পরিবেশ স্বাভাবিক রাখতে ও শিক্ষার্থীদের শিক্ষা কার্যক্রম যাতে ব্যাহত না করার জন্য আন্দোলনকারীদের অনুরোধ জানিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ।

মঙ্গলবার (২৯ ই অক্টোবর) দুপুর ২ টায় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের সংগঠন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কার্যক্রমকে বাধা না দেওয়ার জন্য উপাচার্যের বিরুদ্ধে চলমান আন্দোলনকারীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

ধর্মঘটের সময় সংগঠনের নেতাকর্মীরা দুপুর আড়াইটার দিকে ক্যাম্পাসের পুরানো প্রশাসনিক ভবনের সামনে এই আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের হাতে চিঠিটি হস্তান্তর করেন।

চিঠিতে তারা উল্লেখ করেছে যে, তারা উদ্বিগ্ন যে চলমান ক্লাস ও পরীক্ষা বয়কট কর্মসূচি এবং সর্বাত্মক ধর্মঘটের ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাগত পরিবেশ ব্যাহত হচ্ছে। ফলস্বরূপ, তারা আশঙ্কা করে যে শিক্ষার্থীদের দীর্ঘমেয়াদী সেশন জটের মুখোমুখি হতে হবে। এ জাতীয় পরিস্থিতিতে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শাখা , বিক্ষোভকারীদেরকে এ জাতীয় কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়া থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছে।

জাবি ইউনিটের মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের আহ্বায়ক, নাজমুল হাসান অভি বলেন, “আমরা শুনেছি জামায়াত শিবির চলমান আন্দোলনের সাথে জড়িত রয়েছে। আমরা দুর্নীতির বিরুদ্ধে যে কোন পদক্ষেপকে সমর্থন করি। এক্ষেত্রে আমরা আন্দোলনের শিক্ষকদের আমাদের অবস্থান সম্পর্কে অবহিত করেছি। আমরা আন্দোলনকারীদের একাডেমিক কার্যক্রম অব্যাহত রাখার জন্য আহ্বান জানিয়েছি।”
মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সদস্য সচিব রতন বিশ্বাস বলেন, “ আন্দোলনকারীদের সাথে শিবিরের সম্পৃক্ততার খবর আমরা পেয়েছি, আমরা চাই আন্দোলনকারীরা যেন স্বাধীনতা বিরোধীদের কোন স্থান না দেয় এবং আন্দোলনকারীদের প্রতি আমাদের অনুরোধ রইল যে, তারা যেন ধর্মঘট প্রত্যাহার করে শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রাখে এবং শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরিয়ে আনে ।”

মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড এর যুগ্ম আহ্বায়ক লেলিন মাহবুব বলেন, “ আন্দোলনকারীদের আন্দোলনের আড়ালে জামায়াত-শিবিরকে তাদের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করা উচিত নয়। আমরা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে শিবিরের কোনও ধরণের কার্যক্রমের অনুমতি দেব না। মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসাবে আমাদের কর্তব্য এবং আমরা আমাদের দায়িত্ব পালনের জন্য সচেষ্ট থাকব। “